Header Ads

Header ADS

গজল বা ইসলামি সংগীত এর গঠন ও বানী কেন গাওয়া হয়

                                               গজল এর গঠন ও বানী

গজল গানের কলি গুলোর অর্থ প্রায়ই দ্ব্যর্থবোধ। প্রেম যখন স্রষ্টার উদ্দেশ্যে নিবেদিত হয় তখন তা আধ্যাত্মিক প্রেম। তাই গজল বা ইসলামি গান এক ধরনের ‘ভাব-সঙ্গীত’ বলেও পরিচিত।
গজলের আরেকটি রূপও আছে। সে রূপটি অন্য কোন গানে নেই। আবৃত্তি আকারে গজল পরিবেশন। এসব ধর্মই গজল গান শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ভুবনে আলাদা জাত হিসেবে গণ্য।
বাংলাদেশে অনেক শিল্পিগোষ্টি বর্তমান শ্রুতি মধুর গজল পরিবেশনা করে থাকে ।এখন আমাদের দেশেও কিছু জ্ঞানী মানুষ গজল লিখছেন আবার সুর ও করছেন যা বর্তমান গজল গুলোর মাঝে অন্যতম ।
গজল শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের এক ব্যতিক্রমধর্মী গান। এ গানের ‘ভাষার কাব্য ভাব, রাগের স্বর বিন্যাস ও তালের ছন্দ মাধুর্য এক অনির্বাচনীয় পরিবেশ সৃষ্টি করে থাকে।’

গজল গানের বাণীতে সুর-মিশ্রণে যেসব বক্তব্য ধরা পড়ে তা অনেকটা নিচের মত
  1. একজন অপরজনের সাথে প্রতিযোগিতা করা 
  2. বাঞ্ছিত আমাদের নবীজী কে দেখা না পেয়ে নিজের জীবনকে ধিকৃত করে।
  3. প্রিয়জনের অদর্শনে ব্যাকুল হয়ে পরা
  4. আনন্দে বা দুঃখে সুরা সিন্ধুতে প্রকাশ  হওয়া।
  5. নবীজির প্রেমে অন্ধ হয়ে পাগল অবস্থায় থাকা
  6. নবীজি র  স্তুতিতে বিভোর হয
  7.  ভগবৎ প্রেমের প্রকাশও রয়েছে গানের কথায়                             গজল গানের প্রকৃতি কোমল, ভাবপ্রবণ ও সংবেদনশীল বলে তার পরিধির ক্ষেত্র কিছুটা সীমিত। এ ক্ষেত্রে তিনটি ভাগ দেখা যায়। যেমন: কাব্যের ক্ষেত্রে, রাগের ক্ষেত্রে এবং তালের ক্ষেত্রে।সবগুলাই গজল বা ইসলামি  সংগীত 
   

           

কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.